Cric GossipIPL League

বিদেশিদের ছাড়া আইপিএল মুস্তাক আলি ট্রফি ছাড়া আর কিছুই নয়: ঋদ্ধিমান সাহা

Advertisement

দেশে কোভিড পরিস্থিতি খারাপ হলেও ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ ২০২১ মরসুমটি অব্যাহত ছিল। স্টেকহোল্ডাররা বিশ্বাস করতেন যে আইপিএল লকডাউনের মধ্যে জনগণকে বিনোদন দেবে।
কিন্তু মে মাসের প্রথম সপ্তাহে যখন বেশ কয়েকজন খেলোয়াড় ও কর্মী ভাইরাসে আক্রান্ত হয় , তখন বিসিসিআই এবং আইপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের মাঝপথে মরসুম স্থগিত করা ছাড়া আর কোন উপায় ছিল না। এর ফলে আইপিএলকে এই বছর পুনরায় শুরু করার জন্য বোর্ডেকে বেশ বেগ পেতে হবে। বিদেশী দেশগুলি আইপিএলে খেলার জন্য খেলোয়াড়দের উপলব্ধ করার পরিবর্তে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে অগ্রাধিকার দেবে বলে আশা করা হচ্ছে।

Advertisement

এই মাসের শুরুতে দ্য টেলিগ্রাফকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বোর্ড সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি প্রকাশ করেছেন, ৩১টি খেলা বাকি থাকতে, বিসিসিআই প্রায় ₹২৫০০ কোটি লোকসানের সম্মুখীন। সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের উইকেটরক্ষক ঋদ্ধিমান সাহা, যিনি নিজে ভাইরাসে আক্রান্ত খেলোয়াড়দের মধ্যে একজন ছিলেন, সন্দেহ প্রকাশ করেন বিদেশী খেলোয়াড়দের ফিরে আসার সম্ভাবনা না থাকায় মরসুমটি এই বছর পুনরায় শুরু করা প্রায় অসম্ভব। “বেশিরভাগ বিদেশী অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজের। তাই আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি এই বছর লিগ পুনরায় শুরু করা হবে কিনা তা সন্দেহজনক । বিদেশী খেলোয়াড় ছাড়া, আইপিএল কেবল সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফির একটি বর্ধিত সংস্করণ হবে।” সাহা বলেন।

Advertisement

এদিকে, সাহা বলেছেন, দল পরিবর্তনের আগে আইপিএল দলগুলির খেলোয়াড়দের কমপক্ষে চার-পাঁচটি খেলা দেওয়া উচিত। এসআরএইচ মরশুমের প্রথম কয়েকটি খেলায় প্রচুর পরিবর্তন দেখেছে। এসআরএইচ একমাত্র দল যারা এই বছরের মধ্য মরশুমে অধিনায়কত্বে পরিবর্তন দেখেছিল, কেন উইলিয়ামসন ডেভিড ওয়ার্নারের জায়গায় স্থলাভিষিক্ত হন।

“যে কোনও খেলোয়াড় কয়েকটা ম্যাচে ফ্লপ করতে পারে। কিন্তু যদি লাইন-আপ ক্রমাগত পরিবর্তন করা হয়, কোনও দল থিতু হতে পারবে না। আমি পরামর্শ দেব, শুধু এসআরএইচ-এর জন্য নয়, যে কোনও পক্ষ তাদের সেরা একাদশকে বেছে নিয়ে সরাসরি চার-পাঁচ ম্যাচের জন্য সেই লাইন-আপটিকে খেলাতে। তারা যদি হতাশ করে তবে পরিবর্তনগুলি করুন। এই পরিস্থিতিতে, খেলোয়াড়রা নিজেদের মেলে ধরার যথেষ্ট সুযোগ পাবে এবং দলটিও স্থির দেখাবে। কিন্তু তারপরে, এটি ম্যানেজমেন্টের সিদ্ধান্ত ছিল, আমরা এটি সম্পর্কে খুব বেশি কিছু করতে পারি না।” সাহা বলেন।

Related Articles

Back to top button