Cricket NewsIPL League

স্থগিত আইপিএল! নিজের দেশে না ফিরে মালদ্বীপে উড়ে যাচ্ছেন অস্ট্রেলীয় খেলোয়াড়রা?

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগ হঠাৎ বাতিল হওয়ার পর, অস্ট্রেলীয় খেলোয়াড়, ধারাভাষ্যকার, সাপোর্ট স্টাফ সদস্যদের অধিকাংশই বর্তমানে দেশে কোভিড-১৯ এর ব্যাপক উত্থানের কারণে ভারতে ভ্রমণকারী নাগরিকদের জন্য অস্ট্রেলিয়ান সীমান্ত বন্ধ হয়ে যাওয়ার কারণে আটকে গেছে।উল্লেখযোগ্যভাবে, অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে অংশ নেওয়া বর্তমানে ভারতে থাকা ক্রিকেটারদের ফিরিয়ে আনার জন্য প্রাইভেট ফ্লাইট ব্যবস্থার অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করেছিলেন। অস্ট্রেলীয় সরকার অস্ট্রেলীয় জনগণ এবং কোয়ারেন্টাইন সিস্টেমের স্বাস্থ্য রক্ষার জন্য এই নিষেধাজ্ঞাকে গুরুত্বপূর্ণ বলে উল্লেখ করেছে এবং ১৫ ই মে পর্যন্ত এই নিষেধাজ্ঞা বহাল থাকবে বলে আশা করা হচ্ছে।

আইপিএল বুদবুদে প্রায় ৪০ জন অস্ট্রেলীয় খেলোয়াড়, কোচিং স্টাফ এবং ধারাভাষ্যকার রয়েছেন। অস্ট্রেলিয়া সরকার নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার না করা পর্যন্ত মাইকেল স্লেটার ইতিমধ্যে মালদ্বীপের দিকে যাত্রা করেছেন। এদিকে প্যাট কামিন্স, স্টিভেন স্মিথ, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, রিকি পন্টিং, সাইমন ক্যাটিচের মতো ব্যক্তিরা মাঝপথে লিগ বাতিল হওয়ার পর একই পথ অবলম্বন করবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

অস্ট্রেলীয়দের নিরাপদে ফিরিয়ে আনার জন্য বিসিসিআইয়ের সাথে সরাসরি যোগাযোগ রাখছে সিএ ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার অন্তর্বর্তীকালীন প্রধান নির্বাহী নিক হকলি, প্রধান বেন অলিভার এবং অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশনের সিইও টড গ্রিনবার্গ মঙ্গলবার রাতে জরুরি বৈঠকে ছিলেন। সিএ এবং এসিএ-র এক যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া এবং অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশন সকল অংশগ্রহণকারীদের নিরাপত্তা ও কল্যাণের জন্য ২০২১ সালের ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগ অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত রাখার সিদ্ধান্তকে সমর্থন করছে। এবং সিএ এবং এসিএ অস্ট্রেলিয়া সরকারের অন্তত ১৫ মে পর্যন্ত ভারত থেকে ভ্রমণ স্থগিত রাখার সিদ্ধান্তকে সম্মান করে, এতে কোনো ছাড় দেওয়া হবে না। সিএ এবং এসিএ আইপিএলে সকল অংশগ্রহণকারীদের নিরাপদে দেশে ফেরার সহযোগিতার জন্য বিসিসিআইকে ধন্যবাদ জানায়।” এদিকে, খেলোয়াড়দের ঘরে পৌঁছানোর সবচেয়ে নিরাপদ উপায় খুঁজে পেতে বিসিসিআই ব্যস্ত রয়েছে।

আরও পড়ুন

Back to top button