Cricket NewsIndian Cricket TeamInternational Cricket

Sourav-Kohli: সৌরভ নয় বরং কোহলি মিথ্যা বলছেন, বিস্ফোরক মন্তব্য ভারতীয় দল নির্বাচক চেতন শর্মার

জল্পনায় ঘি ঢাললেন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের দল নির্বাচক প্রধান চেতন শর্মা। তিনি সাংবাদিকদের বলে দেন, “সেপ্টেম্বরে যখন বিষয়টি নিয়ে আমাদের মধ্যে বৈঠক শুরু হয়, তখন সকলেই কার্যত অবাক হয়ে গিয়েছিলাম বিরাটের সিদ্ধান্তে। তখন মিটিংয়ে উপস্থিত সকলেই ওঁকে সিদ্ধান্ত ভেবে দেখার জন্য অনুরোধ করেন।

Advertisement

দক্ষিণ আফ্রিকা সফর করার পূর্বে সাংবাদিক বৈঠকে বসেছিলেন ভারতীয় টেস্ট অধিনায়ক বিরাট কোহলি। অধিনায়ক পদ থেকে সরানোর পর একটি কথাও শোনা যায়নি তার মুখে। এমনকি সোশ্যাল মিডিয়ায় কোন রকম প্রতিক্রিয়া দেখাননি বিরাট কোহলি। তবে বিরাট কোহলি সাংবাদিক বৈঠকে যে বোমা ফাটাবেন, সে আন্দাজ করেছিল ক্রিকেটপ্রেমীরা। আর ঠিক প্রত্যাশা মতো তেমনটাই করছিলেন সাংবাদিক বৈঠকে। প্রোটিয়া সফরে যাওয়ার আগে আজ সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েছিলেন বিরাট কোহলি। আর সেখানেই ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলীকে তুলোধোনা করেন তিনি।

Advertisement

বিরাট কোহলিকে যখন অধিনায়ক পদ থেকে সরানো হয়েছিল তখন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলী সংবাদমাধ্যমে জানিয়েছিলেন যে, অধিনায়ক পদ থেকে সরে যাওয়ার জন্য বিরাট কোহলিকে ৪৮ ঘন্টা সময় দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তিনি সেই সময়ের মধ্যে কোন রকম প্রতিক্রিয়া না দেখানোর কারনে বাধ্য হয়ে রোহিত শর্মাকে অধিনায়ক করা হয়েছে। তিনি আরও বলেছিলেন, টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে অধিনায়কত্ব না ছাড়ার জন্য আমি বিরাট কোহলিকে বারবার অনুরোধ করেছিলাম। কিন্তু তিনি আমার কথার কোন গুরুত্ব দেননি।

Advertisement

সাংবাদিক বৈঠক করতে গিয়ে বিরাট কোহলি সরাসরি বলেন, একদিনের ক্রিকেটে অধিনায়ক পদ থেকে আমাকে সরানো হচ্ছে সেই খবর মাত্র দেড় ঘন্টা আগে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড আমাকে জানিয়েছিল। তাছাড়া টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের অধিনায়ক পদ না ছাড়ার জন্য সৌরভ গাঙ্গুলী আমাকে একটি কথাও বলেননি। সংবাদমাধ্যমে বিরাট কোহলির এমন মন্তব্যের পর ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড এবং ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলীর দিকে প্রশ্ন তুলেছিলেন ক্রিকেটপ্রেমীরা।

এবার সেই জল্পনায় ঘি ঢাললেন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের দল নির্বাচক প্রধান চেতন শর্মা। তিনি সাংবাদিকদের বলে দেন, “সেপ্টেম্বরে যখন বিষয়টি নিয়ে আমাদের মধ্যে বৈঠক শুরু হয়, তখন সকলেই কার্যত অবাক হয়ে গিয়েছিলাম বিরাটের সিদ্ধান্তে। তখন মিটিংয়ে উপস্থিত সকলেই ওঁকে সিদ্ধান্ত ভেবে দেখার জন্য অনুরোধ করেন। সেই সময় আমাদের মনে হয়েছিল, বিরাটের এমন সিদ্ধান্ত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারতের পারফরম্যান্সে প্রভাব ফেলতে পারে। ওঁকে অনুরোধ করে সকলেই বলেন, ভারতীয় ক্রিকেটের স্বার্থে ও যেন অধিনায়কত্ব চালিয়ে যায়। সকলেই সেই মিটিংয়ে ছিলেন- বোর্ডের কনভেনার, আধিকারিক সকলেই। তবে ও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলায়, আমরাও শেষমেশ সেই সিদ্ধান্তকে সম্মান জানাই।”

Related Articles

Back to top button