Cricket NewsIndian Cricket TeamInternational Cricket

Rameez Raja: আর্থিক সঙ্কটে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড, সঙ্কট মেটাতে ভারতের বিরুদ্ধে নয়া নীতি অনুসরণ রমিজ রাজার

মোটকথা ভারতের বিপক্ষে সিরিজ খেলতে মরিয়া হয়ে উঠেছে পাকিস্তান। তবে পাকিস্তানের এই কূটনীতি আদৌ বাস্তবে পরিণত হবে কিনা তা নিয়ে রয়েছে একাধিক প্রশ্ন। কারণ আগামী দুই বছরের জন্য প্রত্যেকটি দেশের আসন্ন সিরিজ লিপিবদ্ধ হয়েছে।

Advertisement

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট বিশ্বে বর্তমানে ভারতের রমরমা। ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিলের প্রায় ৯০ শতাংশ রোজগার হয় ভারত থেকে। যেখান থেকে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড আর্থিক অনুদান পেয়ে থাকে। তবে সর্বক্ষেত্রে ভারতের বিপক্ষে দাঁড়ানোর প্রচেষ্টা কখনোই থামবেনা পাকিস্তানের। আর্থিক অনটনের কারণে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের চেয়ারম্যান রমিজ রাজা এবার নতুন নীতি অবলম্বন করলেন।

Advertisement

ইতিপূর্বে তিনি ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলী এবং সচিব জয় সাহার সাথে ভারত-পাকিস্তান দ্বিপাক্ষিক সিরিজ নিয়ে আলোচনা করেছেন। তবে ভারতের পক্ষ থেকে আশানুরূপ আগ্রহ দেখতে পায়নি রমিজ রাজা। তার ধারণা ছিল, ভারতের বিপক্ষে দ্বিপাক্ষিক সিরিজের আয়োজন করতে পারলে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী হয়ে উঠতো। তবে রাজনৈতিক কারণে সেই সিরিজ কখনোই আয়োজন করা সম্ভব নয় বলে জানিয়েছিলেন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলী।

Advertisement

তবে তা সে কথায় কর্ণপাত না করে রমিজ রাজা নতুন নীতি অবলম্বন করেছেন। তিনি চার দেশীয় সিরিজ আয়োজন করার প্রস্তাব দিয়েছেন বিশ্ব ক্রিকেট নিয়ামক সংস্থাকে। তিনি তার প্রস্তাবে উল্লেখ করেছেন, পাকিস্তান-ভারত-অস্ট্রেলিয়া এবং ইংল্যান্ডকে নিয়ে এই সিরিজ আয়োজন করা হোক। প্রত্যেকবার আলাদা দেশ এই সিরিজ আয়োজন করবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

মোটকথা ভারতের বিপক্ষে সিরিজ খেলতে মরিয়া হয়ে উঠেছে পাকিস্তান। তবে পাকিস্তানের এই কূটনীতি আদৌ বাস্তবে পরিণত হবে কিনা তা নিয়ে রয়েছে একাধিক প্রশ্ন। কারণ আগামী দুই বছরের জন্য প্রত্যেকটি দেশের আসন্ন সিরিজ লিপিবদ্ধ হয়েছে। বলতে গেলে দু'বছরের মধ্যে রমিজ রাজার এই প্রস্তাব গ্রহণ করা সম্ভব নয় আইসিসির পক্ষে। তাছাড়া ত্রিদেশীয় সিরিজের আয়োজন করার অনুমতি দিলেও চার-দেশীয় সিরিজ আয়োজনের অনুমতি কখনোই দেয়নি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট নিয়ামক সংস্থা। ক্রিকেট বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, রমিজ রাজার নতুন নীতি বাস্তবায়ন অসম্ভব।

Related Articles

Back to top button