Cricket News

পূজারাও বর্ণবিদ্বেষের শিকার হয়েছিলেন

কাউণ্টি ক্রিকেট ক্লাব ইয়র্কশায়ারে ‘বর্ণবিদ্বেষের শিকার’ তালিকায় এ বার নাম এল ভারতের তারকা টেস্ট ব্যাটসম্যান চেতেশ্বর পূজারার। ইংল্যান্ডের অনূর্ধ্ব-১৯ দলের প্রাক্তন ক্রিকেটার আজিম রাফিকের অভিযোগ, তাঁর এবং আরও অনেকের মতো পূজারাকেও বর্ণবিদ্বেষ সহ্য করতে হয়েছিল এই কাউন্টি ক্লাবে খেলতে গিয়ে। সেপ্টেম্বর মাসে এই রফিকই অভিযোগ করেছিলেন, ক্লাবে থাকাকালীন আত্মহত্যা করার কথাও ভেবেছিলেন তিনি। যা নিয়ে তোলপাড় চলছে ক্লাবের মধ্যেও।

বর্ণবিদ্বেষ এবং উগ্র আঞ্চলিকতার অভিযোগ বার বার উঠেছে এই ক্লাবের বিরুদ্ধে। ১৯৯১ সাল পর্যন্ত ইয়র্কশায়ার ক্লাবে ইংল্যান্ডের বাসিন্দা ছাড়া অন্য কারোর খেলার অনুমতি ছিল না। প্রথম বিদেশি ক্রিকেটার হিসেবে শচীন তেন্ডুলকর মাত্র ১৯ বছর বয়সে ওই ক্লাবের হয়ে খেলতে যান। রাফিকের অভিযোগ সামনে আসায় বোঝা যাচ্ছে, নিয়ম বদল হলেও সেখানকার মানসিকতা এখনও পুরোপুরি বদলায়নি।

কিছু দিন আগে এক সংবাদ মাধ্যমকে রাফিক বলেন, “জাতের জন্য চোখের সামনে লোকজনকে অপদস্থ হতে দেখেছি। ইয়র্কশায়ারে থাকার সময় মনে হয়েছিল আত্মহত্যা করি।” রাফিকের অভিযোগকে সমর্থন করেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের টিনো বেস্ট এবং পাকিস্তানের রানা নাভেদ-উল-হাসান। প্রাক্তন ২ ইয়র্কশায়ার কর্মী তাজ বাট এবং টনি বাউরিও ক্লাবের বিরুদ্ধে বর্ণবিদ্বেষের অভিযোগ এনেছেন এবং ‘তথ্যপ্রমাণ’ও জমা দিয়েছেন।

আরও পড়ুন

Back to top button