Cricket NewsInternational Cricket

T20 World Cup: দলের অধিনায়ক পথ থেকে সরে দাঁড়ালেন রশিদ খান! এই নতুন অধিনায়ককে নিয়ে মাঠে নামতে চলেছে আফানিস্তান

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করতে প্রস্তুত হয়েছিল আফগানিস্তান। কিন্তু বড় বিপত্তি হয়ে দাঁড়ালো অধিনায়কত্ব নিয়ে। কারণ আফগানিস্তান দলের হয়ে এতদিন যাবৎ অধিনায়কত্ব করে আসছিলেন রশিদ খান। কিন্তু আফগানিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের সাথে দল নির্বাচন নিয়ে মনোমালিন্য হয় রশিদ খানের। সাথে সাথে তিনি অধিনায়ক পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

অনিশ্চয়তার মধ্যেও আশার আলো দেখেছে আফগানিস্তান ক্রিকেট বোর্ড। বিশ্বকাপ শুরুর ঠিক আগের মুহূর্তে আফগানিস্তান দেশ তালেবান শাসকদের হাতে চলে যাওয়ায় ক্রিকেট অনিশ্চয়তার অন্ধকারে ঢেকে গিয়েছিল। যদিও তালেবান নেতাদের সম্মতিক্রমে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করতে প্রস্তুত হয়েছিল আফগানিস্তান। কিন্তু বড় বিপত্তি হয়ে দাঁড়ালো অধিনায়কত্ব নিয়ে। কারণ আফগানিস্তান দলের হয়ে এতদিন যাবৎ অধিনায়কত্ব করে আসছিলেন রশিদ খান। কিন্তু আফগানিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের সাথে দল নির্বাচন নিয়ে মনোমালিন্য হয় রশিদ খানের। সাথে সাথে তিনি অধিনায়ক পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

আফগানিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের নির্বাচক সদস্যরা দল নির্বাচন করার আগে রশিদ খানের সাথে কোনরকম পরামর্শ করেননি। আর সেই জন্য রশিদ খান আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অধিনায়কত্ব পদ থেকে সরে যান। সম্প্রতি আফগানিস্তান ক্রিকেট বোর্ড তাদের নতুন অধিনায়কের নাম ঘোষণা করেছে। আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে আফগানিস্তান দলের অধিনায়কত্ব করবেন বর্তমান পৃথিবীর সেরা অলরাউন্ডার মোহাম্মদ নবী। যিনি এতদিন আফগানিস্তান দলের হয়ে স্পিনার ব্যাটসম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। অন্যদিকে রশিদ খান দায়িত্ব সামলাবেন স্পিনার বিভাগে।

আফগানিস্তান ক্রিকেট দল টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচ খেলবে ২৫শে অক্টোবর। অনির্ধারিত দলের সাথে প্রথম খেলায় অংশগ্রহণ করবে তারা। প্রাথমিক পর্ব থেকে উঠে আসা যেকোনো একটি দলের বিরুদ্ধে মাঠে নামবে আফগানিস্তান ক্রিকেট দল। আফগানিস্তান বর্তমানে বাকি সাতটি দলের সাথে প্রধান পর্বে অবস্থান করছে। আইসিসি বিশ্বকাপ প্রাপ্ত একটি দেশের বিরুদ্ধে আফগানিস্তান এখনো পর্যন্ত জয়লাভ করেছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে আফগানিস্তান পরপর তিনটি ম্যাচে জয়লাভ করে। তাছাড়া এখনো পর্যন্ত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ প্রাপ্ত কোন দেশের বিরুদ্ধে জয়লাভ করতে পারেনি তারা। তাই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আফগানিস্তান ক্রিকেটের জন্য অনেকটা চ্যালেঞ্জিং হবে বলে মনে করছেন ক্রিকেট বিশেষজ্ঞরা।

Related Articles

Back to top button