Cric GossipCricket NewsIndian Cricket TeamInternational Cricket

Ian Chappell: টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের জন্য টেস্ট ক্রিকেটের ভবিষ্যৎ অন্ধকার, হতাশা প্রকাশ করলেন ইয়ান চ্যাপেল

ক্রিকেটের তৈরি করার কারিগর হলো টেস্ট ক্রিকেট। আর সেখানেই ইতি ঘটেছে ক্রিকেটের। দীর্ঘ ফরম্যাটের ক্রিকেট খেলতে অনেক দেশ আগ্রহ দেখায় না। তাছাড়া দীর্ঘ ফরমেটের এই ক্রিকেটে দর্শকের উপস্থিতিও আশানুরূপ নয় বলে মন্তব্য করেছেন অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার ইয়ান চ্যাপেল।

আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপকে নিয়ে একটি সাক্ষাৎকারে অজি বিখ্যাত ক্রিকেটার ইয়ান চ্যাপেল হতাশার সাথে এমন মন্তব্য প্রকাশ করেন। তার মতে, টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের জন্য ক্রিকেটের আদি ফরমেট টেস্ট ক্রিকেটের ভবিষ্যৎ অন্ধকার হয়ে যেতে বসেছে। ক্রিকেটের তৈরি করার কারিগর হলো টেস্ট ক্রিকেট। আর সেখানেই ইতি ঘটেছে ক্রিকেটের। দীর্ঘ ফরম্যাটের ক্রিকেট খেলতে অনেক দেশ আগ্রহ দেখায় না। তাছাড়া দীর্ঘ ফরমেটের এই ক্রিকেটে দর্শকের উপস্থিতিও আশানুরূপ নয় বলে মন্তব্য করেছেন অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার ইয়ান চ্যাপেল।

তিনি তার মন্তব্যে হতাশা প্রকাশ করে বলেছেন, দিনদিন মানুষ টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের দিকে বেশি ঝুঁকে পড়ছে। তার কারণ খেলাটি স্বল্প সময়ের মধ্যে সমাপ্তি ঘটে। যেখানে একটি টেস্ট ক্রিকেটের পূর্ণাঙ্গ ফলাফল আসছে পাঁচ দিন সময় লেগে যায়। বর্তমানে ব্যস্ততার পৃথিবীতে সময়ের অভাবে ক্রিকেটের দীর্ঘ ফরমেট বন্ধ হয়ে যেতে বসেছে। তাছাড়া বিভিন্ন দেশ এখন টেস্ট ক্রিকেট বিমুখ হয়ে পড়েছে। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের জনপ্রিয়তা আকাশচুম্বী হয়ে উঠেছে। তাই সেই দিকে দৃষ্টিপাত করছে প্রত্যেকটি দেশ। টেস্ট ক্রিকেটের চেয়ে অনেক বেশি অর্থ উপার্জন সম্ভব টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে। সেটাও টেস্ট ক্রিকেট বন্ধ হওয়ার একটি মূল কারণ।

তাছাড়া টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের জনপ্রিয়তা লক্ষ্য রেখে বিভিন্ন দেশ এখন ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি লিগের আয়োজন করছে। বেশিরভাগ দেশের স্বনামধন্য ক্রিকেটাররা সেইসব লিগের খেলা খেলতে ব্যস্ত থাকেন। যে জন্য সময় সংকুলান হয়ে যাচ্ছে ক্রিকেটারদের। ধীরে ধীরে টেস্ট ক্রিকেটে দল সীমিত হয়ে পড়ছে। আমি মনে করি এটি ক্রিকেটের মৃত্যু।

অবশ্য ইয়ান চ্যাপেল টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের কিছু ভাল দিকও তুলে ধরেছেন। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, বর্তমান বিশ্বের সময়ের উপযোগী ক্রিকেট হল টি-টোয়েন্টি আসর।টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের সুবাদেই ওমান,পাপুয়া নিউগিনির মতন দেশগুলি ক্রিকেটের সাথে নিজেদের সংযুক্ত করতে সক্ষম হয়েছে। যেখানে টেস্ট ক্রিকেট মাত্র কয়েকটি দেশের মধ্যে সীমাবদ্ধ ছিল। এটি টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের একটি ভালো দিক বলে আমি মনে করি। তবে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের পাশাপাশি আমাদের অবশ্যই ক্রিকেটের আদি ফরমেটটি ধরে রাখতে হবে।

Related Articles

Back to top button