Cricket

২০২১ মহিলা বিশ্বকাপে খেলার যোগ্যতা অর্জন করলো ভারতীয় মহিলা দল

ভারতের ক্রিকেট পরিচালনা কমিটি ঘোষণা করেছে, ভারতীয় মহিলা ক্রিকেট দল আইসিসি মহিলা ওয়ানডে বিশ্বকাপ ২০২১ এর জন্য যোগ্যতা অর্জন করেছে। আইসিসি এক বিবৃতিতে বলেছে, “আইসিসি মহিলা চ্যাম্পিয়নশিপ কারিগরি কমিটি (টিসি) সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে প্রতিযোগিতা উইন্ডো চলাকালীন অনুষ্ঠিত হওয়া আইসিসি মহিলা চ্যাম্পিয়নশিপে তিনটি সিরিজে দলগুলি ভাগ করে নেবে।” ভারত-পাকিস্তানের মধ্যকার সিরিজ খেলা হয়নি কারণ ‘ফোর্স ম্যাজিউর’ ইভেন্টের পরে ভারতের ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল যে দ্বিপক্ষীয় সিরিজে ভারতকে অংশ নিতে অনুমতি দেওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় সরকারী ছাড়পত্র পেতে পারছে না। পাকিস্তানের বিপক্ষে ঐ সিরিজটি আইসিসি মহিলা চ্যাম্পিয়নশিপের একটি অংশ ছিল।

এছাড়াও করোনা ভাইরাস মহামারী দুটি সিরিজ বাতিল করতে বাধ্য করেছিল। যেখানে দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজ আয়োজনের দায়িত্ব পেয়েছিল অস্ট্রেলিয়া বিপক্ষে এবং শ্রীলঙ্কা সিরিজ আয়োজনের দায়িত্ব পেয়েছিল নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে। ৩৭ পয়েন্ট নিয়ে অস্ট্রেলিয়া তালিকায় শীর্ষে রয়েছে তারপর রয়েছে ইংল্যান্ড (২৯), দক্ষিণ আফ্রিকা (২৫) এবং ভারত (২৩)। পাকিস্তান (১৯), নিউজিল্যান্ড (১৭), ওয়েস্ট ইন্ডিজ (১৩) এবং শ্রীলঙ্কা (৫) তালিকাটি সম্পন্ন করতে সক্ষম হয়েছে। আইসিসি মহিলা ক্রিকেট বিশ্বকাপের বাছাইপর্বটি শ্রীলঙ্কায় ৩-১৯ জুলাই থেকে খেলতে চলেছে, কোভিড-১৯ মহামারীর কারণে এটি যদিও পর্যালোচনা সাপেক্ষে।

শ্রীলঙ্কার মাটিতে অনুষ্ঠিত হতে চলা বাছাইপর্বে, ২০২১ বিশ্বকাপে বাকি থাকা তিনটি স্থানের জন্য লড়াই করবে দশটি দল। এগুলি হল আইসিসি মহিলা চ্যাম্পিয়নশিপ থেকে শ্রীলঙ্কা, পাকিস্তান এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ওয়ানডে মর্যাদার অধিকারী আরও দুটি দল, বাংলাদেশ ও আয়ারল্যান্ড এবং পাঁচটি আঞ্চলিক বাছাইপর্বে বিজয়ী দল – থাইল্যান্ড (এশিয়া), জিম্বাবুয়ে (আফ্রিকা), পাপুয়া নিউ গিনি (পূর্ব এশিয়া প্যাসিফিক), আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্র (আমেরিকা) এবং নেদারল্যান্ডস (ইউরোপ)। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য এর আগের আইসিসি মহিলা ক্রিকেট বিশ্বকাপের ফাইনালে পৌঁছাতে সক্ষম হয়েছিল ভারত কিন্তু ফাইনালে ইংল্যান্ডের কাছে পরাজিত হয়েছিল তারা।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button