Cricket

বীরেন্দ্র শেহবাগের ব্যাটিং নিয়ে ফাঁস হল গোপন তথ্য, স্বীকার করলেন নিজেই

এক দুর্দান্ত হাতে-চোখের সমন্বয় বীরেন্দ্র শেহবাগকে তার যুগের সবচেয়ে ভয়ঙ্কর ব্যাটসম্যানদের মধ্যে পরিণত করেছিল। পাওয়ার প্লে তে কোনও বোলারকেই তিনি ছেড়ে কথা বলেননি। টি-টোয়েন্টি, ওয়ানডে বা টেস্ট যাইহোক না কেন শেহবাগ সবসময় আক্রমণাত্মক খেলা খেলেন। যদিও অনেক বিশেষজ্ঞ এবং পন্ডিতরা বলেছেন যে এই দিল্লি ব্যাটসম্যানের যথাযথ ‘ফুটওয়ার্ক’ এর অভাব ছিল। শেহবাগ প্রকাশ করেছেন যে ‘রামায়ণ’ থেকে একটি বিস্ময়কর ঘটনা যা তার ব্যাটিং শৈলীতে অনুপ্রেরণা জাগিয়ে তোলে। যেহেতু রামায়ণ টেলিভিশনে পুনরায় প্রচার শুরু হয়েছে, তাই পুরো ভারত জুড়ে মানুষ তাদের পরিবারের সদস্যদের সাথে মহাকাব্যিক টিভি সিরিজটা দেখার বিরল সুযোগ পেয়েছে, এমনকি নতুন প্রজন্ম যারা তাদের বাবা-মা এবং দাদু-ঠাকমার কাছ থেকে কেবল এটি শুনেছিল।

বর্তমান সময়ে রামায়ণ জ্বর পুরো দেশকে কাবু করে নিয়েছে তাতে কোনও সন্দেহ‌ই নেই, প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার বীরেন্দ্র শেহবাগও টিভি সিরিজটি বেশ উপভোগ করছেন। শেহবাগ রামায়ণের থেকে একটি ঘটনা টুইট করেছেন যেখানে একটি চরিত্র ‘অঙ্গদ’ রাবনের আদালতে উপস্থিত সবাইকে তার পা সরানোর চ্যালেঞ্জ জানিয়েছিল। হিন্দু পৌরাণিক কাহিনী অনুসারে, অঙ্গদ – যিনি বানর সেনার অংশ ছিলেন যারা রামচন্দ্রকে তাঁর স্ত্রী সীতাকে উদ্ধার করতে সাহায্য করার জন্য ‘রাম সেতু’র মাধ্যমে ভারত থেকে লঙ্কায় সমস্ত পথ ভ্রমণ করেছিলেন। তাকে সাময়িক যুদ্ধবিরতি ও যুদ্ধ এড়ানোর বার্তা প্রেরণের জন্য রাবণের সাথে দেখা করতে পাঠানো হয়েছিল। তখন অঙ্গদ রাবনের আদালতে তাদের সকলকে চ্যালেঞ্জ জানায় যে, যদি তারা তাঁর পা তুলতে ব্যর্থ হয় তবে রাবণকে পরাজয় স্বীকার করতে হবে এবং লঙ্কা ছেড়ে চলে যেতে হবে।

প্রচলিত বিশ্বাস অনুযায়ী কেউই অঙ্গদের পা তুলতে পারেনি। শেহবাগ, তাঁর ফুট‌ওয়ার্কের ব্যাপারে করে এই বিষয়টি ব্যবহার করছেন। তিনি টুইট করেছেন, “So here is where i took my batting inspiration from 🙂 Pair hilana mushkil hi nahi , namumkin hai . #Angad ji Rocks” অর্থাৎ “সুতরাং এখান থেকেই আমি আমার ব্যাটিং শৈলীর অনুপ্রেরণা পেয়েছি। পা হেলানো শুধু মুশকিলই নয়, কখনোই সম্ভব নয়। অঙ্গদ জি! আপনি মহান”। শেহবাগ প্রায়শই তাঁর ফুট‌ওয়ার্কের অভাবের কারণে সমালোচকদের দ্বারা টার্গেট হয়েছিলেন যা তাকে অফ স্টাম্পের বাইরের ডেলিভারিতে ঝুঁকিপূর্ণ করে তুলেছিল। ক্যারিয়ারে বেশ কিছুক্ষণ পেসারদের এইরকম লাইনের মুখোমুখি হয়ে লড়াই করার পরে শেহবাগ এই দুর্বলতাটিকে আরও অনেকাংশে উন্নত করেছিলেন এবং তার হাত ও চোখের চমৎকার সমন্বয়সাধন করেছিলেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button