Cricket NewsIndian Cricket Team

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে হেরে গিয়ে লজ্জার রেকর্ড গড়লেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি

পিতৃত্বকালীন ছুটিতে যাওয়ার আগে বিরাটের নেতৃত্বে অস্ট্রেলিয়া সিরিজে অ্যাডিলেডে লজ্জার হার হেরেছিল ভারত। মাত্র ৩৬ রানে সমস্ত উইকেটের পতন হয়েছিল ভারতীয় দলের। তারপর রাহানের অধিনায়কত্বে সিরিজ জিতে ফেরে ভারত। ইংল্যান্ডের সাথে টেস্ট ম্যাচে বিরাটের কামব্যাক নিয়ে উৎসাহিত ছিল ভক্তরা। কিন্তু কোথায় কি? প্রথম টেস্টেই ভরাডুবির মুখে পড়ল ভারতীয় দল। ২২৭ রানের ব্যাবধানে জয় ছিনিয়ে নিল ইংল্যান্ড। এই হার কিছুটা হলেও ভারতের বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে পৌঁছানো কঠিন করে তুললো।

আগাগোড়া এই টেস্টকে নিজেদের কব্জায় রেখেছিল জো রুটের বাহিনী। চার টেস্টের সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে থাকলো ইংল্যান্ড। আর সেই সঙ্গে হাতছাড়া হল ভারতের ‘অপরাজিত’ থাকার তকমা। ১৯৯৯ সালের পর এই প্রথম চেন্নাইয়ে সফরকারী দলের কাছে পরাজিত হল টিম ইন্ডিয়া। এই ভেন্যুতে এর আগে গত ৮টি টেস্ট ম্যাচে অপরাজিত থেকেছে ভারত। সেইসঙ্গে ঘরের মাটিতে ১৪ টি ম্যাচ অপরাজিত থাকার পর এই প্রথমবার পরাজিত ইন্ডিয়া। এখানেই শেষ নয়, অধিনায়ক হিসেবে টান ৪ টি ম্যাচে পরাজয় স্বীকার করলেন কিং কোহলি। গত বছর নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে ওয়েলিংটন ও ক্রাইস্টচার্চে হারে বিরাট বাহিনী। তারপর অ্যাডিলেডে টেস্টে ৩৬ রানের সেই লজ্জার হার। এবার চিপকেও বিরাটের নেতৃত্বে জয়লাভ করতে ব্যর্থ হয় ভারত।

দল নির্বাচন নিয়ে ম্যানেজমেন্টের দিকে একাধিক প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়েছেন ভারতের প্রাক্তন ওপেনার গম্ভীর। অস্ট্রেলিয়া সিরিজে এত ভাল পারফরমেন্স থাকার শর্তেও ইংল্যান্ডের সাথে প্রথম টেস্টে সিরাজকে কেন প্রথম একাদশে রাখা হল না? আবার কুলদীপের দলে না থাকা নিয়েও তিনি প্রশ্ন তুলেছেন। প্রথম ইনিংসে ইংল্যান্ডের ব্যাটসম্যানদের রান চাপতে ব্যর্থ হয় বোলাররা। অন্যদিকে ইংল্যান্ডের বোলারদের সামনে ভারতের ব্যাটিং অর্ডার তাসের ঘরের মতো ধসে পরে। বিগত ১০ বছরে এই নিয়ে ৪ বার ঘরের মাটিতে টেস্ট ম্যাচ হারল ভারত। তবে আত্মবিশ্বাসী বিরাট। তাঁর বিশ্বাস পরবর্তী ম্যাচে ভারত ঘুরে দাঁড়াবে। এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, “সামনের টেস্টগুলিতে ফাইটব্যাক করার জন্য আমরা প্রস্তুত। একটি টেস্ট হেরেছি বলে আমরা মোটেই উদ্বিগ্ন নই”।

আরও পড়ুন

Back to top button