IPL 2020Cricket

কী এমন হল যে ধোনিকে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় এত সমালোচনা?

মহেন্দ্র সিং ধোনিকে আমরা জানি ক্যাপ্টেন কুল হিসাবে। তবে তিনিও মাঝেমধ্যে রেগে যান। তবে তাঁর সেই রেগে যাওয়ার ঘটনা খুবই কম চোখে পড়েছে। এবার এরকমই একটা ঘটনার সাক্ষী থাকল ক্রীড়াপ্রেমী থেকে শুরু করে ধোনির ভক্তরা।

কুল ধোনিই মঙ্গলবার সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে ম্যাচে ধমক  দিয়েছেন আম্পায়ারকে। সেই কারণে ওয়াইড-এর সিদ্ধান্ত বদলেও ফেলেছেন সেই ম্যাচ পরিচালক। খেলার ১৯ ওভারের মাথায় ধোনি বল দেন শার্দুল ঠাকুরকে। শার্দুলের পরপর দুই বলে দুই রান নেন রাশিদ খান। পরের বলটি অফস্টাম্পের বাইরে দিয়ে যাওয়ায় আম্পায়ার ওয়াইড ডাকেন। কিন্তু চতুর্থ বলে ফের ওয়াইড করেন শার্দুল, আম্পায়ার হাত পাশাপাশি রেখে ওয়াইড দেওয়ার জন্য তৈরী হচ্ছেন। এমন সময় ঘটল সেই অদ্ভুত ঘটনাটা। আচমকা চেন্নাই সুপার কিংসের অধিনায়ককে কিছু একটা বলতে শোনা গেল। আম্পায়ার পল রিফেল যখনই ধোনির দিকে চোখ রাখেন, দেখেন তিনি তেড়ে আসছেন, আর কিছু বলছেনও। টিভি ক্যামেরায় দেখা যায়, হায়দরাবাদ অধিনায়ক ওয়ার্নারও এই ঘটনায় বিরক্তি প্রকাশ করছেন। ব্যস, আম্পায়ারও হাত নামিয়ে রেখে দেন, আর ওয়াইডও দেননি।

এরকম একটা ঘটনার পরে সোশ্যাল মিডিয়ায় ধোনিকে নিয়ে সমালোচনা শুরু হয়ে যায় ধোনির। বলা হয়, তিনি যেহেতু অভিজ্ঞ তারকা, সেই কারণেই বাড়তি প্রভাব খাটানোর চেষ্টা করছেন। এমনকি আম্পায়ারদের ক্ষমতা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে। বলা হচ্ছে, আইপিএলের মতো উচ্চমানের একটি টুর্নামেন্টে কেন একজন আম্পায়ার স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারবেন না? সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে এই ম্যাচে ধোনিকে বেশ কয়েকবার মাথা গরম করতে দেখা গিয়েছে। অনেকে এও বলছেন, ক্যাপ্টেন কুল আর নন ধোনি, তিনি ‘আনকুল ক্যাপ্টেন’ হয়ে গিয়েছেন।

একবার ১৮ ওভারে করণ শর্মার বলে রশিদ খান দুটি বাউন্ডারি ও একটি ওভারবাউন্ডারি মারেন। সেই ওভারে ১৯ রান হয় । মাহি সঙ্গে সঙ্গে করণ শর্মার কাছে গিয়ে চিত্‍কার করে কিছু একটা বলেন, যা শোনা গিয়েছে স্টাম্প মাইক্রোফোনে। তিনি যে উত্তেজিত হয়ে কিছু বলছেন, সেটাও পরিস্কার বোঝা গিয়েছে। এই ধরণের ঘটনার পর ক্যাপ্টেন কুল কে নিয়ে সমালোচনা শুরু হয়ে গেছে।

Related Articles

Back to top button