IPL 2020Cricket

বড় জয় মুম্বইয়ের, দিল্লির প্লে-অফে ওঠা আরো কঠিন হয়ে গেল

পরপর ম্যাচ হারতে হারতে যেন জিততেই ভুলে গিয়েছে দিল্লি ক্যাপিটালস। আইপিএলের শেষ তিনটি ম্যাচে পর আজ চতুর্থ ম্যাচেও হার মানল দিল্লি। মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের বিরুদ্ধে ৯ উইকেটে হেরে প্লে-অফে ওঠার রাস্তা কঠিন করে ফেলল শ্রেয়াস আইয়ারের দল।

প্রথমে ব্যাট করতে আসে দিল্লি। শুরু থেকেই খারাপ ব্যাটিংয়ের জন্য ব্যাকফুটে চলে যায় তারা। ট্রেন্ট বোল্ট ও জসপ্রীত বুমরাহর বোলিংয়ের সামনে কিছুটা আত্মসমর্পণ করে দিল্লি। প্রথম ওভারেই শূন্য করে প্যাভিলিয়নে ফিরে যান শিখর ধাওয়ান। তৃতীয় ওভারে শেষ বলে ১০ রান করে ফিরে যান পৃথ্বী শ। শ্রেয়স আইয়ার কিছুটা প্রতিরোধ গড়ে তোলার চেষ্টা করলেও ১০ ওভারে দলের ৫০ রানের মাথায় তিনিও ফিরে যান। তারপর থেকে আর কেউই মুম্বইয়ের বোলিংয়ের সামনে একটুও লড়াই করতে পারেননি। ঋষভ পন্থের ২১ ছাড়া বাকিরা পাতে দেওয়ার মতো রানটুকু তুলতে পারেননি। ফলাফল যা হওয়ার তাই হয়। শেষ পর্যন্ত ২০ ওভারে মাত্র ১১০ রানে শেষ হয়ে যায় ইনিংস।

এদিন দুর্দান্ত বল করেন ট্রেন্ট বোল্ট এবং বুমরাহ। দু’‌জনেরই ইকোনমিক বল করার পাশাপাশি দু’‌জনেই নিলেন তিনটি করে উইকেট। বুমরাহ এদিন কাগিসো রাবাদার কাছ থেকে ছিনিয়ে নেন অরেঞ্জ ক্যাপ। ন্যাথান কুলটার নাইল ও রাহুল চাহার একটি করে উইকেট নেন। সব মিলিয়ে দিল্লির ব্যাটসম্যানরা কোনওভাবেই মাথা তুলেই দাঁড়াতে পারেননি এদিন।

এত কম রান ডিফেন্ড করা টি-২০ ক্রিকেটে প্রায় অসম্ভব। তাও যদি দিল্লির বোলাররা শুরুতে বেশ কয়েকটা উইকেট তুলে নিত ম্যাচটা একটু জমত। কিন্তু কিছুই পারল না। এমনিতেই দুরন্ত ফর্মে আছেন ডি’‌কক আর ঈশান কিষানরা। সেই আত্মবিশ্বাসই ধরা পড়ল তাঁদের ব্যাটে। প্রথম থেকেই দেখে শুনে খেলতে শুরু করেন দু’‌জনে। অশ্বিনকে প্রথমেই বল করতে এনে বাঁহাতি দুই ওপেনি ব্যাটসম্যানকে কিছুটা চমকে দিয়েছিল দিল্লি। কিন্তু ঠাণ্ডা মাথার দুই ওপেনার খেলার রাশ কখনই হাত থেকে বেরিয়ে যেতে দেননি। তবে ভাগ্যের দোষে এদিন বোল্ড হয়ে ফেরেন ডি’‌কক। দিল্লির বোলারদের পিটিয়ে ছাতু বানিয়ে ৪৭ বলে অপরাজিত ৭২ রানের ঝকঝকে ইনিংস খেলে ম্যাচ জিতিয়ে নিয়ে যান ঈশান কিষান। ম্যাচেও সেরাও নির্বাচিত হন সেই কিষানই।

Related Articles

Back to top button