IPL 2020Cricket

মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে হেরে প্লে অফের আশা শেষ চেন্নাইয়ের

সিএসকে কে হারিয়ে লীগ শীর্ষে মুম্বই

শেষ ম্যাচে রাজস্থান রয়্যালসের বিরুদ্ধে ৭ উইকেটে হারলেও মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের বিরুদ্ধে লজ্জাজনক হার চেন্নাই সুপার কিংসের। ২০ ওভারে চেন্নাই সুপার কিংসের করা ১১৪-৯ রান কোনো উইকেট না হারিয়েই মাত্র ১২.২ ওভারে তুলে নেয় মুম্বই। এই জয়ের ফলে ১০ ম্যাচে ১৪ পয়েন্ট সংগ্রহ করে লীগ টেবিলের শীর্ষে উঠে এল মুম্বই। আর হারের ফলে শুধু লীগ টেবিলের সবার শেষেই রইল না চেন্নাই এবারের মত তাদের প্লে অফে কোয়ালিফাই করার আশাও শেষ হয়ে গেল।

এদিন চেন্নাইয়ের ব্যাটসম্যানরা আটকে গেল মুম্বইয়ের দুই পেসারের কাছে। একজন ট্রেন্ট বোল্ট। আরেকজন , জসপ্রীত বুমরা। বোল্ট নিলেন চার উইকেট। বুমরা পেলেন দু’‌উইকেট। হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট পাওয়া রোহিতের অনুপস্থিতিতেই মুম্বই ১০ উইকেটে হারাল চেন্নাইকে। আইপিএলের ইতিহাসে প্রথমবার দশ উইকেটে হারল সুপার কিংস।

এদিন টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন রোহিত শর্মার অনুপস্থিতিতে অধিনায়ক হওয়া কাইরন পোলার্ড। এরপর বোল্ট-বুমরার সামনে একের পর এক উইকেট হারাতে থাকেন ধোনিরা। প্রথম তিন রানেই চার উইকেট পড়ে যায়। এরপর দলের ২১ রানের মাথায় ফেরেন জাদেজা। শুরুটা ভাল করলেও ১৬ রান করে আউট হন ধোনিও। তখন চেন্নাইয়ের রান মাত্র ৩০। চাহারও ফিরে যান শূন্য রানে।

দলের এই পরিস্থিতিতে পাল্টা লড়াই শুরু করেন স্যাম কারেন। কার্যত একাই লড়াই করেন। ৪৭ বলে ৫২ রানের সৌজন্যেই চেন্নাইয়ের রান ১০০-র গণ্ডি পেরোয়। শেষদিকে কিছুটা সাহায্য করেন শার্দুল ঠাকুর (‌১১) এবং ইমরান তাহির (‌১৩*‌)। নির্ধারিত ২০ ওভারে চেন্নাইয়ের রান ওঠে ন’‌উইকেটে ১১৪। বোল্ট ১৮ রান দিয়ে একাই নেন চার উইকেট। বুমরা এবং রাহুল চাহার নেন দু’‌টি করে উইকেট।‌
জবাবে ব্যাট করতে নেমে রোহিতের অভাব একাই ঢেকে দেন ঈশান কিষান। ডি’‌কক-কিষানের ওপেনিং জুটিই মুম্বইকে জয় এনে দেয়। কিষান করেন অপরাজিত ৬৮ রান। তাও মাত্র ৩৭ বলে। মারেন ছ’‌টি বাউন্ডারি ও ৫টি ওভারবাউন্ডারি। ডি’‌কক করেন অপরাজিত ৪৬ রান। শেষপর্যন্ত ১২.‌২ ওভারেই জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় রান তুলে নেয় মুম্বই।

জয়ের ফলে ১০ ম্যাচে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে মুম্বই শীর্ষে। আর তিনবারের চ্যাম্পিয়ন চেন্নাই ১১ ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে সবার শেষেই রইল।

Related Articles

Back to top button