IPL 2020

সুপার ওভারে মুম্বাইকে হারিয়ে শেষ হাসি হাসলেন কোহলি

‌পরপর দুদিন দুটি রোমাঞ্চকর ক্রিকেট ম্যাচের আনন্দ পেল ক্রিকেটপ্রেমীরা। আগের দিন রাজস্থান বনাম পাঞ্জাব ম্যাচের পর, গতকাল মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স বনাম রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর ম্যাচেও আগাগোড়া ছিল নাটকীয়তা। এইদিন দুবাই ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট গ্রাউন্ডে টসে জিতে বঙ্গালোরকে ব্যাটিং করতে পাঠান।ব্যাট করতে নেমে ব্যাঙ্গালোরের দুই ওপেনার দারুন শুরু করেন। প্রথম থেকেই আক্রমণাত্মক শট খেলে ৩৫ বলে ৫২ রান করেন ফিঞ্চ। এবং আরেক ওপেনার দেবদত্ত পাডিকল করেন ৪০ বলে ৫৪ রান। তবে এদিন আবার ব্যার্থ হন আরসিবি অধিনায়ক বিরাট কোহলি। ১১ বল খেলে মাত্র ৩ রান করেন তিনি। শেষে এবি ডিভিলিয়ার্স ২৪ বলে ৫৫ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলে ২০১ রানের স্কোরে পৌঁছে দেন ব্যাঙ্গালোরকে।

এই বিরাট রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুতেই টপ অর্ডারের তিন ব্যাটসম্যান রোহিত শর্মা, ডি কক, এবং সূর্যাকুমার যাদবকে হারায় মুম্বাই। সকলে ধরেই নিয়েছিল যে ম্যাচ মুম্বাইয়ের হাত থেকে বেরিয়ে গেছে। কিন্তু হাল না ছেড়ে শেষ পর্যন্ত লড়াই করে যান এই মরসুমের প্রথম ম্যাচ খেলা ঈশান কিষন। মাত্র এক রানের জন্য শতরান হাতছাড়া হয় তাঁর। ৫৮ বলে ৯৯ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। তাকে সঙ্গ দিয়ে ছয় নম্বরে ব্যাট করতে নেমে আরও একবার নিজের ব্যাটের জোর দেখালেন ক্যারিবিয়ান অলরাউন্ডার কিরণ পোলার্ড। মাত্র ২৪ বলে ৬০ রানের দুধর্ষ ইনিংস খেলেন তিনি। শেষ ওভারে যখন পোলার্ড এবং ঈশান ব্যাট করছিলেন তখন জেতার জন্য দরকার ছিল ১৯ রান।

বল করতে আসেন শ্রীলঙ্কান অলরাউন্ডার ইসুরু উদানা।প্রথম দু’বলে দু’রান দিলেও পরের দুটি বলে তাঁকে দুটি ছয় মারেন ঈশান কিষন। ফলে জয়ের জন্য মুম্বাইকে বাকি ২ বলে ৫ রান করতে হত। তখন নিজের উইকেট হারান ইশান এবং শেষ বলটিতে চার মারেন পোলার্ড। যার ফলে খেলা গড়ায় সুপার ওভারে। সুপার ওভারে মুম্বাইয়ের পক্ষে ব্যাট করতে নামেন হার্দিক পান্ডে এবং পোলার্ড। ব্যাঙ্গালোরের হয়ে বল করেন নবদীপ সাইনি। দুরন্ত বল করে মুম্বাইকে মাত্র ৭ রানে বেঁধে রাখেন সাইনি।ফলে সুপার ওভারে জেতার জন্য ব্যাঙ্গালোরের লক্ষ্য দাঁড়ায় ৮। বিরাট কোহলি এবং এবি ডিভিলিয়ার্স ব্যাটিং করতে নেমে খুব সহজেই এই লক্ষে পৌঁছে যায়। ম্যাচের সেরা হন ডিভিলিয়ার্স। এই ম্যাচ জিতে পয়েন্ট টেবিলের তৃতীয় স্থানে উঠে এল আরসিবি। অন্যদিকে হারের পর পঞ্চম স্থানে নেমে গেল মুম্বাই। সংক্ষিপ্ত স্কোর:

রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর: ২০১/৩(২০.০), ডি ভিলিয়ার্স ৫৫*(২৪), ফিঞ্চ ৫২(৩৫)
বোল্ট ৪-০-৩৪-২
রাহুল চাহার ৪-০-৩১-১
মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স: ২০১/৫(২০.০) ঈশান কিষান ৯৯(৫৮), পোলার্ড ৬০(২৪),
ইসুরু উদানা ৪-০-৪৫-২, ওয়াসিংটন সুন্দর ৪-০/১২-১
ম্যাচের সেরা: এবি ডিভিলিয়ার্স

Related Articles

Back to top button