IPL 2020

ফাইনালে উঠে দলের খেলোয়াড়দের প্রশংসায় দিল্লির অধিনায়ক

আবুধাবির মাঠে গতকাল দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচে দিল্লি ক্যাপিটালস সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করে ২০ ওভারে ১৮৯ রান সংগ্রহ করে। রান তারা করতে নেমে ১৭২ রানে শেষ হয়ে যায় হায়দরাবাদের ইনিংস। ১৭ রানে ম্যাচ জিতে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের বিরুদ্ধে ফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে দিল্লি। প্রথমবার আইপিএলের ফাইনালে উঠে দলের খেলোয়াড়দের প্রশংসা করলেন অধিনায়ক শ্রেয়াস আইয়ার। ম্যাচের শেষে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে এসে দিল্লির অধিনায়ক কী কী বললেন শুনে নিন।

ফাইনাল নিয়ে বললেন শ্রেয়স আইয়ার

ফাইনাল নিয়ে ম্যাচের শেষে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে শ্রেয়াস বলেন,  “এখনও পর্যন্ত সবচেয়ে ভালো অনুভূতি হচ্ছে। এই সফর একটা রোলাকোস্টার থেকেছে। প্রত্যেক খেলোয়াড় এখনও পর্যন্ত যে প্রয়াস করেছে, তাতে আমি ভীষণই খুশি। আমাকে বেশকিছু বিষয়ে শেখানো হয়েছে। একজন অধিনায়ক হওয়ার সঙ্গেই আপনার কাছে অনেক দায়িত্ব আসে। কিন্তু কোচ আর সাপোর্ট স্টাফদের থেকে সমর্থন পাওয়া গিয়েছে। তার কারণেই দল এতটা স্পেশাল থেকেছে।” 

দলের রণনীতির ব্যাপারে বললেন শ্রেয়স আইয়ার

কোয়ালিফায়ার ম্যাচ চলাকালীন দিল্লি ক্যাপিটালস দলের রণনীতি নিয়ে বলতে গিয়ে শ্রেয়াসের উত্তর“এইভাবে দুর্দান্তভাবে দলের জন্য ভাগ্যের থাকা ভীষণই গুরুত্বপূর্ণ। আবেগ উপর আর নীচে উঠতে পড়তে থাকে, এই কারণে আপনি সবসময় ম্যাচের ব্যাপারে একটা বিষয়ে ভাবতে পারেন না। সময় এগিয়ে যায় আর আপনাকেও পরিবর্তিত হতে হয়। আশা রয়েছে যে আগামী ম্যাচেও আমরা মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের হয়ে খোলাখুলি খেলতে পারব। ১০ এর রান রেটে আমরা এগিয়ে যাচ্ছিলাম, কিন্তু আমরা জানতাম যে মাঝের ওভারে রশিদ খান খতরনাক প্রমাণিত হতে পারে। পরিকল্পনা ছিল ওকে উইকেট না দেওয়ার।”

মার্কাস স্টোইনিসকে উপরে পাঠানো নিয়ে বললেন শ্রেয়স

বড় ম্যাচে মার্কাস স্টোইনিসকে ওপেনিং করানোর সিদ্ধান্তের জমিয়ে প্রশংসা হচ্ছে। যে ব্যাপারে কথা বলতে গিয়ে শ্রেয়াস আইয়ার বলেন যে, “শুরুর জুটিতে কমতি দেখা যাচ্ছিল। আমাদের রকেট স্টার্টের দরকার ছিল। আমরা ভেবেছিলাম যে যদি স্টোইনিস যায় আর বেশিরভাগ বড় শট খেলে তো ও আমাদের ভালো শুরু এনে দিতে পারে।” 

Related Articles

Back to top button