Cricket NewsIndian Cricket TeamIPL League

T20 World Cup: ঘুরে গেল ভাগ্যের চাকা, ভারতীয় দলে যোগ দেবেন ভারতীয় এই তরুন ক্রিকেটার

সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের একজন কর্মকর্তা ক্রিকবাজকে এই বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। জম্মু ও কাশ্মীরের তরুণ ডান-হাতি পেসার তুলনামূলকভাবে অনভিজ্ঞ হলেও তার গতি বিস্মিত করেছে ক্রিকেট বিশ্বকে। সেই কারণেই সম্প্রতি বিশ্বকাপে বিরাট বাহিনীকে মূল খেলার জন্য তৈরি করার উদ্দেশ্যেই জাতীয় দলে ডাক পড়েছে তার।

উমরান মালিক টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ২০২১-এ নেট বোলার হিসাবে ভারতীয় দলে যোগ দেবেন। সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের একজন কর্মকর্তা ক্রিকবাজকে এই বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। জম্মু ও কাশ্মীরের তরুণ ডান-হাতি পেসার তুলনামূলকভাবে অনভিজ্ঞ হলেও তার গতি বিস্মিত করেছে ক্রিকেট বিশ্বকে। সেই কারণেই সম্প্রতি বিশ্বকাপে বিরাট বাহিনীকে মূল খেলার জন্য তৈরি করার উদ্দেশ্যেই জাতীয় দলে ডাক পড়েছে তার। ৮ই অক্টোবর সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের আইপিএল অভিযান শেষ হওয়ার পরেই বিসিসিআই মালিককে তাদের সিদ্ধান্তের কথা জানায়।

সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের শিবিরে এক বছর নেট বোলার হিসেবে ছিলেন উমরান মালিক। টি নটরাজনের করোনা হওয়ায় সামরিক পরিবর্ত হিসেবে তাকে দলে নেয় হায়দ্রাবাদ। তার পারফরম্যান্স নজর কেড়েছে সকলেরই। চোখে পড়েছে ভারত অধিনায়কেরও। বিরাট কোহলির অনুরোধেই এই তরুণ ডান-হাতি পেসারকে ভারতীয় দলের নেট বোলার হিসেবে রাখা হচ্ছে। গ্রুপ ২-এ স্থান পেয়েছে ভারত। আগামী ২৪শে অক্টোবর পাকিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে প্রথম ম্যাচ খেলবে।

ব্যাঙ্গালোরের জাতীয় ক্রিকেট একাডেমির প্রধান ফিজিওথেরাপিস্ট আশিস কৌশিক পদত্যাগ করেছেন। ৩১শে অক্টোবর তাকে অব্যাহতি দেওয়া হবে বলেই জানা গিয়েছে। বিসিসিআইয়ের একজন শীর্ষ কর্মকর্তা ক্রিকবাজকে জানিয়েছেন, আশিস কৌশিক তার কাজ খুব ভাল ভাবেই করতেন। কিন্তু তিনি এগিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তিনি এই মাসের শেষের দিকে তার নোটিশ পিরিয়ড শেষ করবেন বলেই জানিয়েছেন বিসিসিআইয়ের শীর্ষ কর্মকর্তা।

আশিস কৌশিক প্রথম ২০০৯ সালে এনসিএ-তে যোগ দেন। ২০১৪ সাল পর্যন্ত সিনিয়র ফিজিওথেরাপিস্ট হিসাবে কাজ করেনছিলেন সেখানে। তিনি ২০১১’র বিশ্বকাপের সময় ভারতীয় দলের সাথেও কাজ করেছিলেন। পরে ২০১৭ সালে প্রধান ফিজিওথেরাপিস্ট হিসাবে যোগ দিয়েছিলেন। তিনি রাহুল দ্রাবিড়ের নেতৃত্বে এনসিএ-র অন্যতম প্রধান ব্যক্তিত্ব ছিলেন এবং প্রাক্তন ভারত অধিনায়কের অপরিসীম আত্মবিশ্বাস অর্জন ও উপভোগ করেছিলেন। তিনি শ্রীলঙ্কায় সীমিত ওভারের সিরিজেয় ভারতীয় দলের সাথে ছিলেন।

আসলে, এনসিএ-র সমস্ত ফিজিও এবং স্ট্রেংথ অ্যান্ড কন্ডিশনিং প্রশিক্ষকরা তাদের চুক্তি শেষ করেছেন। কয়েক মাস ধরে অস্থায়ী সম্প্রসারণে ছিলেন অনেকেই। বিসিসিআই / এনসিএ-র আবেদনগুলি প্রক্রিয়াকরণের কাজ গ্রহণ করেছে এবং সাক্ষাৎকারগুলিও করা হচ্ছে। কয়েকজন জাতীয় নির্বাচক সাক্ষাৎকার পরিচালনায় সহায়তা করার জন্য ব্যাঙ্গালোর ভ্রমণ করেছেন বলেই মনে করা হচ্ছে।

আশিস কৌশিক জানিয়েছেন যে তিনি এনসিএ ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কারণ তিনি মনে করেন অন্য কারও দায়িত্ব নেওয়ার সময় এসেছে। তিনি এনসিএ-তে সেরা ১০ বছর কাটিয়েছেন। বিসিসিআই একজন দুর্দান্ত নিয়োগকর্তা হয়েছেন। রাহুল দ্রাবিড়ের কাছ থেকেও তিনি সমর্থন পেয়েছেন। কৌশিক ক্রিকবাজকে এমন কথাই বলেছিলেন। তিনি এও জানান, তিনি তার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেননি, তবে তিনি খেলাধুলার জগৎ-এর সাথেই যুক্ত থাকবেন।

Related Articles

Back to top button