IPL 2020Cricket

মুম্বই তো কোয়ালিফাই করল, এবার দেখুন বাকী ৬টা দলের প্লে-অফের সমীকরণটা

এবারের আইপিএলে এখনো পর্যন্ত প্লে-অফে উঠতে পেরেছে মুম্বই ইন্ডিয়ান্স। গতকাল রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুকে ৫ উইকেটে হারিয়ে প্রথম দল হিসাবে এবারের আইপিএলের প্লে-অফে কোয়ালিফাই করল মুম্বই।

এবার দেখে নেব আরও তিনটে টিমের প্লে-অফে ওঠার সম্ভাবনা রয়েছে

রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু : 

মুম্বইয়ের কাছে হারলেও ১২ ম্যাচে ১৪ পয়েন্ট সংগ্রহ করে লিগ টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে আরসিবি। তাদের রানরেট +০.০৪৮। তাদের বাকী দুটি ম্যাচ রয়েছে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ ও দিল্লি ক্যাপিটালসের বিরুদ্ধে। দুটো ম্যাচের মধ্যে ১টি ম্যাচ জিতলেই প্লে-অফে চলে যাব আরসিবি। আর যদি দুটো ম্যাচ হারে তাহলে তাদের পয়েন্ট থাকবে সেই ১৪। তখন রানরেট দেখা হবে। বর্তমানে বিরাটদের যেরকম রানরেট সেরকমটা ধরে রাখতে পারলে বা কমলেও যদি খুব কম না হয় তাহলে ২টো ম্যাচ হারার পরেও প্লে-অফে চলে যাবে। তবে দল যেরকম ছন্দে আছে, যতই শেষ দুটো ম্যাচে তারা হারুক না না কেন আগামী দুটো ম্যাচের মধ্যে অন্তত একটাতে জিতবে তারা এবং কমপক্ষে ১৬ পয়েন্ট নিয়েও প্লে-অফে কোয়ালিফাই করবে।

দিল্লি ক্যাপিটালস : 

দিল্লি ক্যাপিটালস তাদের আইপিএলের শুরুটা দারুন করলেও হটাৎ করে খেই হারিয়ে ফেলছে। শেষ তিনটি ম্যাচের মধ্যে ৩টিতে হেরে ১২ ম্যাচে তাদের সংগ্রহ ১৪ পয়েন্ট। রানরেট +০.০৩০। ১টা ম্যাচ জিতলেই তারা প্লে-অফে কোয়ালিফাই করতে পারে। তবে তাদের আগামী দুটো ম্যাচ যেহেতু মুম্বই ইন্ডিয়ান্স ও রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর বিরুদ্ধে তাই এই দুটো ম্যাচে জয়ের জন্য যথেষ্ট লড়াই করতে হবে। আর যদি দুটোই হরে তাদের রানরেট – এ চলে যাবে। তখন বাকী দলের পারফরম্যান্সের ওপর নির্ভর করতে হবে। যদিও তার সম্ভাবনা কম। কারণ পরপর ৫টি ম্যাচ হেরে দিল্লি প্লে অফে উঠতে পারবে না এরকম সম্ভাবনা খুবই কম।

কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব : 

এবারের আইপিএলে যেভাবে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব বেশ কিছু ম্যাচে জয়ের কাছ থেকে ফিরে এসেছে তাতে অনেকেই ধরে নিয়েছিল তারা বোধহয় এবার আর প্লে-অফে কোয়ালিফাই করতে পারবে না। কিন্তু সবাইকে ভুল প্রমাণিত করে ক্রিস গেইল দলের প্রথম একাদশে যোগ দেওয়ার পরেই পরপর পাঁচটা ম্যাচ জিতে প্লে-অফে ওঠার লড়াইয়ে চলে এসেছে। এই মুহূর্তে ১২ ম্যাচে ১২ পয়েন্ট সংগ্রহ করে চতুর্থ স্থানে উঠে এসেছে তারা। পাঞ্জাবের বর্তমান রানরেট -০.০৪৯। তাদের পরবর্তী দুটো ম্যাচ রাজস্থান রয়্যালস ও চেন্নাই সুপার কিংসের বিরুদ্ধে। এই দুটো ম্যাচের মধ্যে দুটো বড় ব্যবধানে জিতলে প্লে-অফে কোয়ালিফাই করার সম্ভাবনা বেশি। একটি ম্যাচ জিতলে প্লে-অফের আশা শেষ।

কলকাতা নাইট রাইডার্স : 

কলকাতা নাইট রাইডার্স ১২ ম্যাচে ১২ পয়েন্ট সংগ্রহ করে এই মুহূর্তে পঞ্চম স্থানে রয়েছে। তবে তাদের রানরেট খুব খারাপ। -০.৪৭৯। তাই প্লে-অফে কোয়ালিফাই করতে হলে আজ চেন্নাই সুপার কিংসের বিরুদ্ধে এবং পরের ম্যাচে রাজস্থান রয়্যালসের বিরুদ্ধে জিততে তো হবেই। শুধু তাই নয়, যেকোন একটা ম্যাচ বড় ব্যবধানে জিতে রানরেটও বাড়িয়ে রাখতে হবে। আজ চেন্নাই সুপার কিংস এবারের আইপিএলের বিচারে সহজ প্রতিপক্ষ বলে নাইট রাইডার্সের টার্গেট থাকবে আজই বড় জয় ছিনিয়ে নেওয়ার দিকে। একটা ম্যাচও যদি কেকেআর হরে তাদের রানরেট যা খারাপ প্লে-অফে কোয়ালিফাই করার কোনো সম্ভাবনা নেই।

সানরাইজার্স হায়দরাবাদ : 

হায়দরাবাদ এই মুহূর্তে ১২ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট সংগ্রহ করে ষষ্ঠ স্থানে রয়েছে। তবে তাদের রানরেট খুব ভাল। +০.৩৯৬ হায়দরাবাদের পরবর্তী দুটো ম্যাচ রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু ও মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের বিরুদ্ধে। দুটোই কঠিন প্রতিপক্ষ। দুটো ম্যাচ যদি যেতে ১৪ পয়েন্টে যাবে। সেক্ষেত্রে বাকী টিমগুলোর পারফরম্যান্সের ওপর নির্ভর করবে তাদের প্লে-অফে যাওয়া। যদিও অতীতে হায়দরাবাদের এরমক রেকর্ড রয়েছে। ২০১৬ সালে ৫ দিনের ব্যবধানে ৩টি ম্যাচ জেতা কিংবা গতবছর ১২ পয়েন্ট নিয়ে প্লে-অফে কোয়ালিফাই করা সবই তাদের দখলে। এবছর সেরকম অঘটন ঘটাতে পারে কী না সেদিকে লক্ষ্য থাকবে সবার।

রাজস্থান রয়্যালস :

রাজস্থান রয়্যালস ১২ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট সংগ্রহ করে সপ্তম স্থানে রয়েছে। তবে তাদের রানরেট খুব কম। -০.৫০৫। তাদের পরের দুটো ম্যাচ কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব ও কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিরুদ্ধে। এই দুটো ম্যাচ জিতলে তাদের পয়েন্ট হবে ১৪। কিন্তু স্মিথের দলের যা রানরেট প্লে-অফে কোয়ালিফাই করার সম্ভাবনা খুবই কম। বড় কিছু অঘটন না ঘটলে রাজস্থানের পক্ষে প্লে-অফে কোয়ালিফাই করার সম্ভাবনা নেই।

বাকী কোন তিনটি দল প্লে-অফে কোয়ালিফাই করতে পারে এই প্রসঙ্গে সিএবি আম্পায়ার ও ক্রিকেট বিশেষজ্ঞ সুবীর বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন,মুম্বইয়ের পর আরসিবি প্লে-অফে যাচ্ছে। দিল্লির পক্ষে সব ম্যাচ জেতা জরুরী। সানরাইজার্সের পক্ষে প্লে অফে কোয়ালিফাই করা অনেকটাই কঠিন কারণ তাদের দুটো ম্যাচই দুটো বড় প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে। রাজস্থান আর পারবে না। আমার মতে প্লে-অফে ওঠার জন্য আসল লড়াইটা হবে কলকাতা নাইট রাইডার্স ও কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের মধ্যে।” 

 

 

 

Related Articles

Back to top button